সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে এন আই টি-র এক পদক্ষেপ

আমার কথা, দুর্গাপুর

আমরা ছোট থেকে পড়ে বড় হয়েছি যে বিজ্ঞান আশীর্বাদ না অভিশাপ? সেটা পড়তে পড়তেই জানা গেছে যে এই বিজ্ঞানকে যে যেভাবে ব্যবহার করবে, তার কাছে, তার সেই কাজের ভিত্তিতে সেটা আশীর্বাদ বা অভিশাপ হয়ে ধরা দেবে। অনেকেই আছেন যারা বিজ্ঞানকে ব্যবহার করেন ধ্বংসের কাজে, আবার অনেকে আছেন যারা এই বিজ্ঞানকে গড়া বা সৃষ্টির কাজে লাগান, যেমন কাজে লাগিয়েছেন ন্যাশানাল ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির দুর্গাপুর শাখা। তারা তৈরী করেছেন ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট এর জন্য “সুরক্ষিত” নামে একটি যন্ত্র।  যখন কোথাও প্রাকৃতিক বিপর্যয় ঘটে তখন, সেই এলাকার মানুষজন  বিপর্যয়ে আটকে পড়ে। তখন বলতে গেলে তাদের সাথে সব রকম যোগাযোগ, এমন কি ইন্টারনেট ব্যবস্থাও বন্ধ হয়ে যায় আর এই যন্ত্রটির কাজ শুরু হয় ঠিক তখনই। এই যন্ত্রের দ্বারা ওই বিপদগ্রস্থ মানুষগুলোর সাথে যোগাযোগ করে তাদের জন্য প্রয়োজনীয় খাবার-দাবার, ওষুধপত্র, জামা-কাপড় পৌছনোর ব্যবস্থা করা সম্ভব, সাথে তাদের উদ্ধারের ব্যবস্থাও করা যেতে পারে।

এছাড়াও তারা আরও একটি যন্ত্র তৈরী করেছেন যে যন্ত্রটি মুলত বায়ু দূষণের ক্ষেত্রে দুষিত অঞ্চলে বসবাসকারী মানুষজনের ক্ষেত্রে বিশেষ করে শিল্পাঞ্চলে বেশী কাজে লাগবে। এই যন্ত্রটি মুলত ইন্টারনেট ব্যবস্থার দ্বারা পরিচালনা করা যেতে পারে। এই যন্ত্রের সেন্সর  একটি ম্যাপ তৈরী করে দেবে, যার দ্বারা মানুষজন বুঝতে পারবেন যে কোন এলাকাটা বেশি দুষিত তাহলে তারা সেই এলাকা এড়িয়ে চলতে পারবেন। এই যন্ত্রের সেন্সর কার্বন-ডাই-অক্সাইড,কার্বন-মোনোক্সাইড, মিথেন এর মতো গ্যাস গুলোকে সেন্স করতে পারবে। শুধু তাই নয় কেউ চাইলে এই যন্ত্রের মাধ্যমে তারা নিজের ঘরের দুষণের মাত্রাও মাপতে পারবেন।
দিন কয়েক আগে প্যারিসে একটি সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন যে প্রতিটি পৌরসভার মাধ্যমে এলাকাগুলিতে দূষন কন্ট্রোল করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর এই কর্মসুচীর ক্ষেত্রে তাদের এই যন্ত্রগুলি খুবই ভাল কাজে লাগবে বলে আশাবাদী ন্যাশানাল ইনস্টিটিউটের দুর্গাপুর শাখার কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর সুজয় সাহা।
শুক্রবার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেকনলজির দুর্গাপুর শাখার পক্ষ থেকে মহকুমা শাসকের দপ্তরে “সুরক্ষিত” সহ অন্যান্য যন্ত্রগুলির ডেমো্নস্ট্রেশন দেওয়া হয়। মহকুমা শাসক শঙ্খ সাঁতরা এই বিষয়টি নিয়ে খুবই উৎসাহী সাথে আশাবাদীও। তিনি বলেন যে, “দপ্তরের অনুমতি নিয়ে এই যন্ত্রগুলো কে কাজে লাগানোর ব্যবস্থা করব। বিশেষ করে আমাদের এখানে যেখানে যেখানে কোলিয়ারী, কারখানা,গ্যাসের পাইপলাইন আছে সেই সব জায়গায় এগুলোকে কাজে লাগানোর ব্যবস্থা করব”।

[arve url=”https://www.youtube.com/watch?v=ftcgGI3fhfo&feature=youtu.be” /]

[arve url=”https://www.youtube.com/watch?v=sGc7FqDuICg&feature=youtu.be” /]

                

Spread The Word