সুদূর হায়দ্রাবাদের ব্যাংক জালিয়াতির যোগসুত্র দুর্গাপুরে, গ্রেপ্তার ১

আমার কথা, পশ্চিম বর্ধমান, ২২নভেম্বরঃ

ব্যাংক জালিয়াতি চক্রের হদিশ মিলল দুর্গাপুরে, যার জাল পাতা হয়েছিল সুদূর হায়দ্রাবাদে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত নীরজ ভগত নামে এক ব্যাক্তিকে দুর্গাপুরের কোকওভেন থানা এলাকার হাটতলা থেকে গ্রেপ্তার করে হায়দ্রাবাদ পুলিশ। আজ তাকে দুর্গাপুর মহকুমা আদালতে পেশ করে ট্রাঞ্জিট রিমান্ডে নেয় হায়দ্রাবাদ সাইবার ক্রাইম বিভাগ।

জানা গেছে, গত ১৪নভেম্বর হায়দ্রাবাদে মোহন রাজ নামে এক ব্যাক্তির ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে ছয় লক্ষ টাকা উধাও হয়ে যায়। হায়দ্রাবাদেই সাইবার ক্রাইম ব্রাঞ্চে অভিযোগ জানান ওই ব্যাক্তি। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নেমে গোপনে পাওয়া খবরের সুত্র ধরে সাইবার ক্রাইম ব্রাঞ্চের আধিকারিক প্রাশান্ত কুমারের নেতৃত্বে পাঁচজনের একটি দল এসে পৌঁছয় দুর্গাপুরে। এরপর অভিযান চালিয়ে আজ সকালে হাটতলা এলাকা থেকে নীরজকে গ্রেপ্তার করেন তারা। নীরজের অ্যাকাউন্ট পরীক্ষা করে দেখা গেছে সেখানে দশ হাজার টাকা ঢুকেছিল।

এদিকে গতকাল দীপক সাহু নামে আরো এক ব্যাক্তিকে এই ঘটনার সাথে যুক্ত সন্দেহে ওই হাটতলা এলাকা থেকেই গ্রেপ্তার করে হায়দ্রাবাদ পুলিশ। পুলিস সুত্রের খবর ওই দীপক সাহু হাটতলা এলাকায় বেশ কয়েকজন ব্যাক্তির ব্যাংক অ্যাকাউন্টকে ব্যবহার করে। তাদের প্রলোভন দেখায় এই মর্মে যে তাদের অ্যাকাউন্টে কিছু টাকা আসবে আর সেই সেই টাকা থেকে তারা কিছু কমিশন পাবে। সাথে এও জানা গেছে, নীরজের অ্যাকাউন্টে যে দশ হাজার টাকা এসেছিল তার থেকে আট হাজার টাকা ইতিমধ্যেই তুলে নিয়েছে দীপক। দীপককে আদালতে পেশ করা হলে যেহেতু সে শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী তাই জামিনে সে মুক্তি পায়। তবে আগামী ১৫ডিসেম্বর হায়দ্রাবাদের সাইবার ক্রাইম ব্রাঞ্চে তাকে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

পুলিশ সুত্রের খবর, বিভিন্ন তথ্যের বিনিময়ে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা গায়েব করার মূল যে চক্রটি বর্তমানে সক্রিয় হয়েছে তাদের মূল ঘাঁটি রয়েছে ঝাড়খন্ডের জামতাড়া ও জসিডিতে। পাশাপাশি চক্রটি এই রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলাতেও তাদের থাবা বসিয়েছে। এরা মূলতঃ গ্রামের অর্ধশিক্ষিত ও অশিক্ষিত মানুষদের কমিশনের প্রলোভন দেখিয়ে জিরো ব্যালান্সের অ্যাকাউন্টগুলোকে কাজে লাগিয়ে নিজেদের কার্যসিদ্ধি করছে।



Spread The Word