মেয়রের পরে এবার শ্রমিক নিয়োগ নিয়ে অস্বচ্ছতার অভিযোগ মেয়র পারিষদের বিরুদ্ধে

আমার কথা, দুর্গাপুর, ৫ডিসেম্বরঃ

শ্রমিক নিয়োগ নিয়ে ইতিমধ্যে দুর্গাপুর নগর নিগমে মেয়রের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগে সরব হয়েছেন মেয়র পারিষদদের একাংশ। তার রেশ এখনও কাটেনি তার মধ্যেই ফের শ্রমিক নিয়োগ নিয়ে অস্বচ্ছতার অভিযোগ উঠল মেয়র পারিষদ তথা আইএনটিটিইউসির প্রাক্তন জেলা সভাপতি প্রভাত চ্যাটার্জীর বিরুদ্ধে।

আজ দুর্গাপুর নগর নিগমের তথ্যকেন্দ্র ভবনে তপসিলি জাতি ও উপজাতিদের নিয়ে একটি বৈঠক করছিলেন জেলা সভাপতি ভি শিবদাসন দাশু। সেই বৈঠক চলাকালীন আচমকাই একদল লোক যারা নিজেদের একসময় দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানা থেকে বহিষ্কৃত শ্রমিক বলে দাবি করছেন, তারা ঢুকে পড়েন, সাথে আইএনটিটিইউসির প্রাক্তন জেলা সভাপতি প্রভাত চ্যাটার্জীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। তাদের অভিযোগ, প্রভাত চ্যাটার্জী ও তার অনুগামীরা প্রায় ৪৫০০ তপসিলি জাতি উপজাতি ঠিকা শ্রমিককে অন্যায়ভাবে দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানা থেকে ছাঁটাই করেছে। শুধু তাই নয় তাদের আরো অভিযোগ, ২০১৬ সালে যখন দুর্গাপুরে সমস্ত কারখানায় তৃণমূল শ্রমিক সংগঠনের পরিচালন কমিটিগুলি ভেঙ্গে দেয় উচ্চ নেতৃত্ব তখনও প্রভাত চ্যাটার্জী টাকার বিনিময়ে ভিন জেলা ও ভিন রাজ্য থেকে শ্রমিকদের এই কারখানায় ঢুকিয়েছেন আর তপসিলি জাতি উপজাতির স্থানীয় শ্রমিকদের ছাঁটাই করেছেন।

এই বিক্ষোভের জেরে ভেস্তে যায় বৈঠক। বিক্ষুব্ধদের শান্ত করতে তাদের সাথে কথা বলেন জেলা সভাপতি। তিনি আশ্বাস দেন বিষয়টি দেখার। সাথে এও আশ্বাস দেন খুব তাড়াতাড়ি তাদের সাথে বৈঠকে বসবেন জেলা সভাপতি।

এদিকে সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেন মেয়র পারিষদ তথা আইএনটিটিইউসির প্রাক্তন জেলা সভাপতি প্রভাত চ্যাটার্জী। তিনি বলেন, “ছাঁটাই বা নিয়োগ সম্পূর্ণ ডিএসপি ম্যানেজমেন্টের বিষয়, এর সাথে আমার কোনো সম্পর্ক নেই। আর যে শ্রমিকদের নিয়ে কথা উঠছে তারা কোনো শ্রমিকই নয়, কারন তারা মাসে দশ বারোদিন মাল লোডিং আনলোডিং এর কাজ কাজ করত।” 

তবে, বিক্ষুব্ধ শ্রমিকনেতা বাবুরাম দাস হুঁশিয়ারী দিয়ে বলেন, “আমরা সাতদিন সময় দিচ্ছি তার মধ্যে ছাঁটাই শ্রমিকদের ফের কাজে ফিরিয়ে নিতে হবে। নাহলে আরো বড় আন্দোলনের পথে পা বাড়াবো আমরা” সাথে তারা দল থেকে প্রভাত চ্যাটার্জীর বহিষ্কারেরও দাবি জানান।   




Spread The Word