দুর্গাপুরে গরু চুরিকে কেন্দ্র করে জনতা পুলিশ খন্ডযুদ্ধ, আহত এক আধিকারিক সহ বেশ কয়েকজন পুলিশকর্মী

আমার কথা, দুর্গাপুর, ২৩ডিসেম্বরঃ
দুই গরু চোরকে কেন্দ্র করে রীতিমতো রণক্ষেত্র দুর্গাপুরের ডিএসপি টাউনশিপের এ জোনের হোস্টেল অ্যাভিন্যু লাগোয়া বস্তি এলাকা। পরিস্থিতি আয়ত্বে আনতে লাঠিচার্জ করতে হয় পুলিশকে বলে অভিযোগ, পাশাপাশি উত্তেজিত জনতার ছোঁড়া ইটের ঘায়ে আহত হয়েছেন এক পুলিশ আধিকারিক হন বেশ কয়েকজন পুলিশকর্মী সহ সিভিক ভলান্টিয়ার।


জানা গেছে, আজ সকাল ১০-১০টা ৩০ নাগাদ ওই বস্তি এলাকায় দুজন গরু চোরকে হাতে নাতে ধরে ফেলে বস্তিবাসীরা। এরপর ওই দুই অভিযুক্তকে বেঁধে চলে উত্তম মধ্যম। ইতিমধ্যে খবর যায় থানায়। এজোন ফাঁড়ি সহ দুর্গাপুর থানা থেকে পুলিস আসে ওই দুই গরু চোরকে ধরে থানায় নিয়ে যেতে। কিন্তু তাতে বাধ সাথে বস্তিবাসীরা। তাদের অভিযোগ, পুলিশ অভিযুক্তদের থানায় নিয়ে গেলে তারা কোনো সুবিচার পাবে না। কারন হিসেবে ওই এলাকার বাসিন্দা রাজু সিং জানান যে, “এর আগেও আমার ছ্যটি গরু চুইর গেছিল, আর তার অভিযোগ থানাতে জানানোও হয়েছে। কিন্তু পুলিশ তার জন্য কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।”
পাশাপাশি তারা আরো জানান যে, আজ সকালে আরো চারটি গরু চুরি গেছিল। অভিযোগ গলসী থেকে চারজন উবক ‘Excise on duty’ লেখা একটি গাড়ি নিয়ে আসে ওই এলাকায় গরু চুরি করতে এলাকাবাসীরা ধরে ফেললে দুজন পালিয়ে যায় আর বাকি দুজন ধরা পড়ে। পুলিশ ধৃতদের নিজেদের জিম্মায় নিতে গেলে তখনই এলাকাবাসীদের সাথে খন্ড যুদ্ধ বাঁধে। পুলিশকে লক্ষ্য করে ঢিল ছুঁড়তে থাকে উত্তেজিত জনতা। মুহূর্তের মধ্যে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এলাকা। জনতার ছোঁড়া ইটে আহত হন এ জোন ফাঁড়ির অফিসার ইনচার্জ সহ ১০জন পুলিশ কর্মী। আহত হন বেশ কয়েকজন সিভিক ভলান্টিয়ারও। আহতদের ডিএসপির মেন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপরেই পরিস্থিতি আয়ত্বে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে, সাথে ধৃত দুই গরুচোরকে নিজেদের হেফাজতে নেয় পুলিশ। প্রসঙ্গতঃ ওই এলাকার বস্তিতে বেশ কয়েকটি খাটাল রয়েছে। ইদানিং ওই খাটালগুলো থেকে গরু চুরি যাচ্ছে বলে এলাকাবাসীদের অভিযোগ।
এই ঘটনায় গরুচোরদের পাশাপাশি আরো ৫জনকে আটক করেছে পুলিশ।




Spread The Word