দুর্গাপুরে রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাংক থেকে ফিক্সড ডিপোজিটের টাকা উধাও, বিপাকে দম্পতি

আমার কথা, দুর্গাপুর, ৭ফেব্রুয়ারীঃ
ব্যাক অ্যাকাউন্ট থেকে রহস্যজনকভাবে উধাও হয়ে গেল ফিক্সড ডিপোজিটের একাংশ। ঘটনাটি ঘটেছে দুর্গাপুরের কোকওভেন থানার অন্তর্গত নডিহার রবীন্দ্রপল্লীর বাসিন্দা কৃষাণু ভুঁইঞার সাথে। এই বিষয়ে ব্যাঙ্কের অসহযোগিতার অভিযোগ উঠছে।
কৃষাণুবাবু কর্মসূত্রে চেন্নাইয়ে থাকেন। এদিকে দুর্গাপুরের সেন মার্কেটে একটি রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাংকের শাখা তাঁর অ্যাকাউন্ট রয়েছে। সেই অ্যাকাউন্টে ২০১৮ এর ৮ই অক্টোবর ৯লক্ষ ৪৪হাজার টাকার একটি ফিক্সড দিপোজিট করেন, যার মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার কথা ২০২০ সালের ৮ই জানুয়ারী। কিন্তু তার আগেই ১৬ই জানুয়ারী মোট ৫লক্ষ ২৯হাজার টাকা অ্যাকাউন্ট থেকে পে টি এমের মাধ্যমে মোট ছয় দফায় তুলে নেওয়া হয় যা কৃষাণুবাবুর ফোনে মেসেজ আসে, সাথে ব্যাঙ্কের তরফে একটি ফোন নাম্বার দেওয়া ছিল যা দিয়ে টাকা তোলা নাকি বন্ধ করা যায়। কিন্তু অভিযোগ ব্যাংকের দেওয়া ওই নাম্বারে ফোন বা মেসেজ দুটোর কোনোটাতেই কাজ হয়নি।
এই ঘটনায় হতবাক কৃষাণুবাবুর স্ত্রী ঋতুপর্ণাদেবী জানান যে বিষয়টি নিয়ে তাঁরা সিআইডি, এন্ডোর্সমেন্ট, থানা ও ব্যাংকের শাখা ও আরবিআই কর্তৃপক্ষকে লিখিত আকারে জানানো হয়েছে। কিন্তু ব্যাংকের পক্ষ থেকে উল্টে ঋতুপর্ণাদেবীকে দোষারোপ করে যে, নিশ্চয়ই গ্রাহকের পক্ষ থেকেই কোনো গোপন তথ্য বাইরে প্রকাশ করে দেওয়া হয়েছে। এরপর বলা হয় ৩০দিনের আগে কোনো অভিযোগ নেওয়া যাবে না। এরপর বিষয়টি নিয়ে ঋতুপর্ণাদেবী কোকোওভেন থানার শরনাপন্ন হন। সেখানে এফ আই আর করা হয়।
ঋতুপর্ণাদেবীর অভিযোগ, না পুলিশের পক্ষ থেকে না ব্যাংকের পক্ষ থেকে কোনোরকম সহযোগিতা করা হচ্ছে না। সাথে তিনি এও অভিযোগ করছেন যে, ব্যাংকের থেকে ফিক্সড ডিপোজিটের টাকা এভাবে কেউ আত্মসাৎ করে নিলো অথচ সেই টাকার আসল যে মালিক তার কাছে ব্যাংকের তরফে কোনো ওটিপি বা মেসেজ বা ফোন বা সাক্ষর ছাড়া কি করে সেটা সম্ভব। যদিও এ বিষয়ে ব্যাংকের তরফে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

Spread The Word