পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু দুর্গাপুর মেন হাসপাতালের সিস্টার ইন চার্জের, উত্তেজনা এলাকায়

আমার কথা, দুর্গাপুর, ১১ফেব্রুয়ারীঃ
পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানার মেন হাসপাতালে কর্মরত এক নার্সের। মৃতার নাম ক্ষমা মল্লিক। তিনি দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানার মেন হাসপাতলের এমারজেন্সী বিভাগের সিস্টার ইন চার্জ হিসেবে কর্মরত ছিলেন। গতকাল রাতে ক্ষমাদেবী তাঁর ছেলের সাথে স্কুটিতে করে ডিউটি যাচ্ছিলেন। ডিউটি যাওয়ার পথে স্কুটি থেকে পড়ে মৃত্যু হয় তাঁর।
জে এম সেনগুপ্ত থেকে মেন হাসপাতালের মধ্যে দিয়ে এডিসন রোড যাওয়ার পথে গত শুক্রবার দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানার পক্ষ থেকে আচমকাই তিনটি স্পিড ব্রেকার তৈরী করা হয়। এলাকাবাসীদের অভিযোগ যেখানে স্পিড ব্রেকারগুলি তৈরী করা হয়েছে সেখানে আলোর ব্যবস্থা নেই সাথে ওই স্পিড ব্রেকারগুলির কোনো ঢাল করা নেই, সেগুলি খাঁড়াভাবে তৈরী করা হয়েছে, এমনকি সেগুলিতে কোনো চিহ্নিতকরনেরও ব্যবস্থা করা হয়নি। ফলে আলো না থাকার দরুন রাতের বেলা একটু অসতর্ক হলেই দুর্ঘটনার সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে। গতকাল রাতের ওই দুর্ঘটনার পেছনে ওই স্পিড ব্রেকারগুলিই দায়ী বলে অভিযোগ। ইতিমধ্যে ওই স্পিড ব্রেকারের জন্য ৬-৭টি দুর্ঘটনা ঘটে গেছে বলে জানান এলাকাবাসীরা।
গতকাল রাতে ক্ষমাদেবীর ছেলে তাঁকে স্কুটিতে করে হাসপাতালে পৌঁছতে যাচ্ছিলেন। সেই সময় অন্ধকারে ওই স্পিড ব্রেকারগুলি দেখতে না পাওয়ায় তাতে ধাক্কা লাগে। স্কুটি থেকে পড়ে যান তিনি। নাক মুখ দিয়ে রক্তক্ষরণ শুরু হয়। এরপর তাঁকে তড়িঘড়ি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এরপরেই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। উত্তেজিত জনতা ক্ষোভে ওই স্পিড ব্রেকারগুলি কেটে দেন, সাথে এক ডিএসপি আধিকারিককেও মারধর করে বলে অভিযোগ। ঘটনার খবর পেয়েই এলাকায় ছুটে আসে দুর্গাপুর থানার পুলিশ ও সিআইএসএফ। এরপর ধীরে ধীরে পরিস্থিতি আয়ত্বে আসে।

Spread The Word