স্কুলের পাঁচিল ভেঙ্গে ঢুকে পড়ল বালিগাড়ি

আমার কথা, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১২ফেব্রুয়ারীঃ
পাঁচিল ভেঙ্গে বালি ভর্তি ডাম্পার ঢুকলো বিদ্যালয়ে। আর এই ঘটনায় ফের বছর দুয়েক আগের পুরানো স্মৃতি মনে করিয়ে দিল এলাকাবাসীকে। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের শালবনীর ভাদুতলাতে। ভোরের আলো ফোটার আগেই হুড়মুড় শব্দ শুনে স্থানীয় বাসিন্দার বাড়ি থেকে বেরিয়ে দেখেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঁচিলটি ভেঙ্গে বালি বোঝাই একটি লরি দুর্ঘটনার কবলে। গ্রামবাসীরা অনেক খোঁজাখুঁজি করেও পেলেন না চালক বা খালাসীকে।
স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে পিড়াকাটার দিক থেকে মেদিনীপুরগামী একটি বালি বোঝাই ডাম্পার রাস্তার ধারে ভাদুতলা হীরেন্দ্র নগর জি এস এস প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাচীরে ধাক্কা মারে। এই ধাক্কার দরুন বিদ্যালয়ের পাঁচিলটি ভেঙ্গে পড়ে। চালক ও খালাসী পলাতক। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ প্রত্যক্ষভাবে বালিগাড়ির বেপরোয়া গতিবেগের জন্যই এই রকম দুর্ঘটনা ঘটছে। কিন্তু পরোক্ষভাবে এই সব দুর্ঘটনার জন্য দায়ী পুলিশ বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। তারা অভিযোগ করেন যে, পুলিশ রাস্তা ঘিরে তোলা আদায় করে। সেই তোলাকে ফাঁকি দেওয়ার জন্যই বালি বোঝাই লরিগুলি দ্রুতবেগে চলে। তার ফলে দুর্ঘটনা ঘটছে।
উল্লেখ করা যায়, মাত্র দু বছর আগেই এই ভাদুলতাতেই লরি দুর্ঘটনায় মারা যায় একাধিক স্কুল পড়ুয়া। পুলিশ ঘাতক লরিটিকে তাড়া করেছিল আর সেই কারনেই ওই দুর্ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ। তারপরেও হুঁশ ফেরেনি প্রশাসনের। আজকের এই দুর্ঘটনা সেটাই প্রমান করে দিল। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ এই দুর্ঘটনা যদি সকালে না ঘটে বিদ্যালয় চলাকালীন ঘটতো তাহলে আবারও একটি বড়ো দুর্ঘটনা ঘটতে পারতো।

Spread The Word