মলানদিঘীতে পুলকারে ধাক্কা লরির, আহত ৬ পড়ুয়া সহ চালক

আমার কথা, দুর্গাপুর, ২৭ফেব্রুয়ারীঃ
সাত সকালে পথ দুর্ঘটনায় উত্তেজনা ছড়ালো কাঁকসার মলানদিঘীর ঘটকডাঙ্গায়। একটি পুলকারকে পাথরবোঝাই একটি লরি পেছন থেকে ধাক্কা মারলে মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলে পৌঁছয় কাঁকসা থানার পুলিশ।
জানা গেছে, আজ সকাল ৭টা নাগাদ স্বরস্বতীগঞ্জ ও বিষ্ণুপুর থেকে ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে মুচিপাড়া শিবপুর রোড ধরে পুলকারটি কাঁকসার দোমরা রামকৃষ্ণ সেবাশ্রম যাওয়ার সময় পাথর বোঝাই লরিটি অপর একটি লরিকে অতিক্রম করতে গিয়ে দ্রুতগতিতে এসে প্রথমে পুলকারটিকে পেছন থেকে ধাক্কা মারে তারপর গিয়ে একটি গাছে ধাক্কা মারে। ঘটনার জেরে পুলকারের ৭জন পড়ুয়া ও চালক খালাসী মিলিয়ে মোট ১০জন আহত হয়।
এই ঘটনার পরেই ঘাতক লরির চালক পালিয়ে যায়। দুর্ঘটনার জেরে আগুন ধরে যায় ঘাতক লরিটিতে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। আহতদের উদ্ধার করে মলানদিঘীতে একটি বেসরকারী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে ৩জনকে প্রাথনিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়। বাকী ৭জনের অবস্থা গুরুতর থাকায় তাদের বিধাননগরে একটি বেসরকারী হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। আহতরা হল মৌমিতা সাহা, সুদীপ্তা পাল, স্নেহশ্রী সাহা, ত্রিষান পাত্র, রাজেন্দ্রনাথ ব্যানার্জী, শান্তনু রায় ও দিলীপ বাগদী(চালক)।
খবর পাওয়া মাত্র ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন তৃণমূলের জেলার কার্যকরী সভাপতি উত্তম মুখার্জী ও বোরো চেয়ারম্যান চন্দ্রশেখর ব্যানার্জী।
এদিকে দুর্ঘটনার জেরে উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয়রা, ফলে বেশ কয়েক ঘন্টার জন্য অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে শিবপুর রোড। দমকলের একটি ইঞ্জিন এসে লরির আগুন নেভায়। পরে লরিটিকে সরিয়ে নিয়ে গেলে স্বাভাবিক হয় যন চলাচল।
স্থানীয়দের অভিযোগ, ওই এলাকায় পুলিশ প্রায় সময় লরি আটকে টাকা তোলে। আজ সকালেও হয়ত পুলিশের হাত থেকে বাঁচতে গিয়ে লরিটি সম্ভবত পালাচ্ছিল আর তাতে নিয়ন্ত্রণ রাখতে না পারায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

Spread The Word