দুর্গাপুরের ৫নং ওয়ার্ডে অসামাজিক কাজকর্মের জন্য ক্লাবে তালা মারলেন পুরপিতা

আমার কথা, দুর্গাপুর, ১২মার্চঃ

বেশ কিছুদিন যাবৎ ক্লাবে কিছু যুবকের উৎপাতে অতিষ্ট এলাকাবাসীদের অভিযোগের ভিত্তিতে এবার পদক্ষেপ নিয়ে সেই ক্লাবে তালা মেরে দিলেন পুরপিতা। ঘটনাটি দুর্গাপুরের ৫নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত ডেভিড হেয়ার রোডের।

স্থানীয় সুত্রের খবর, ওই এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে বহিরাগত কিছু যুবক ওই ক্লাবে নানা অসামাজিক কাজকর্ম চালাচ্ছে বলে অভিযোগ। অভিযোগ ওই যুবকদের দৌরাত্মে এলাকাবাসীরা আতঙ্কিত হয়েছিলেন। এরপর তৃণমূলকর্মী রাহুল সিংহ ওরফে আপ্পুকে গুলি করার ঘটনায় নাম উঠে আসে ডেভিড হেয়ার রোডের এই ক্লাবটির। সব মিলিয়ে বিষয়টি কানে পৌঁছয় ওই ওয়ার্ডের পুরপিতা অমিতাভ বন্দোপাধ্যায়ের। অভিযোগের ভিত্তিতে আজ সকালে ওই ক্লাবের তালা ভেঙ্গে ভেতরে ঢোকেন তিনি। উদ্ধার হয় প্রচুর মদের বোতল। পাশাপাশি ওই ক্লাবের ভেতর ‘দুর্গাপুর ইয়ুথ অ্যাসোসিয়েশন’ নামাঙ্কিত একটি ব্যানারও টাঙ্গানো রয়েছে যা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। এই ব্যানারে উল্লেখিত সংস্থাটি কাদের আর কিসের সংস্থা? পুরপিতা বলেন যে, “অভিযোগ উঠছিল এই ক্লাবে নাকি তৃণমুল আশ্রিত দুষ্কৃতিরা আসর বসিয়েছে। কিন্তু আমি এখানে তৃনমুলের কোনো চিহ্নই খুঁজে পাইনি। চক্রান্ত করে বহিরাগতরা আমাদের দলকে বদনাম করার জন্য মিথ্যা রটনা রটাচ্ছে। এগুলো সিপিএম আর বিজেপির কাজ। গুলি খেয়েছে আমাদের দলের ছেলে। আমার ওয়ার্ডে কোনো অসামাজিক কাজ হতে দেবো না। আরো অন্য ক্লাবে যদি এরকম কিছু শুনি তাহলে সেই ক্লাব ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেবো।”

এরপরেই ওই ক্লাবে তালা লাগিয়ে দেন পুরপিতা অমিতাভ বন্দোপাধ্যায়।   

Spread The Word