হেলমেটের জন্য দুর্গাপুরে মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচল যুবক

আমার কথা, দুর্গাপুর, ১৭এপ্রিলঃ

রাজ্য সরকারের কর্মসূচী ‘সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ”। এই কর্মসূচী নিয়ে বিভিন্ন স্তরে সারা বছর ধরেই সাধারন মানুষকে সচেতন করা হয় যে কি করলে দুর্ঘটনার হাত থেকে নিজের বা আপনজনের জীবন রক্ষা করা যায়। যার মধ্যে মূলতঃ রয়েছে বাইক চালানোর সময় অবশ্যই যেন হেলমেট পড়া হয়। কিন্তু তারপরেও অনেককেই দেখা যায় এই হেলমেট না পড়েই দ্রুতগতিতে বাইক চালাতে। বিশেষ করে ইয়াং জেনারেসনের মধ্যে এর আধিক্য বেশী মাত্রায় লক্ষ্য করা যায়। কিন্তু হেলমেট পড়লে যে জীবনহানির সম্ভাবনা অনেকটাই কমিয়ে দেয় তাঁর সাক্ষী থাকল আজ শিল্পাঞ্চল দুর্গাপুরের বাসিন্দারা। শুধুমাত্র হেলমেটের কারনে প্রাণে বেঁচে গেল দুর্গাপুরের এজোনের ৩১নং সেকেন্ডারী রোডের বাসিন্দা বছর কুড়ির রোহন তিওয়ারী। আজ বিকেলের দিকে শিবাজী রোডের দিক থেকে রোহন বাইকে করে সেকেন্ডারী রোডে নিজের বাড়ি ফিরছিল। প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে সে অত্যন্ত দ্রুতগতিতে বাইক চালাচ্ছিল। শর্ট রোডের মুখে আচমকাই তাঁর বাইকের সামনে একটি টোটো চলে আসায় টোটোটিকে বাঁচাতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সোজা গিয়ে গাছে ধাক্কা মেরে বাইক থেকে ছিটকে পড়ে যায়। চোট গুরুতর থাকলেও মাথায় হেলমেট থাকার কারনে প্রাণে রক্ষা পায় রোহন। এরপর খবর যায় পুলিশে। তবে পুলিশ আসার আগেই এলাকাবাসীরা রোহনকে তুলে চিকিৎসার জন্য ডিএসপির মেন হাসপাতালে নিয়ে যায়।




Spread The Word