পুজোর প্রাক্কালে দুর্গাপুরের ৪৩নং ওয়ার্ডে একগুচ্ছ কর্মসূচী সমারোহে অনুষ্ঠান

আমার কথা, পশ্চিম বর্ধমান, ১০অক্টোবরঃ

পুজোর আগে পশ্চিম বর্ধমানের ক্লাব সমন্বয়ের উদ্যোগে পশ্চিম বর্ধমানের দুর্গাপুরের ৪৩নং ওয়ার্ডে শ্যামপুর বাজারে রাজ্য সরকারের জনকল্যাণমূলক কর্মসূচী নিয়ে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এই অনুষ্ঠানের শুরুতেই ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে পদযাত্রার আয়োজন করা হয় পথ নিরাপত্তাকে সকলের সামনে তুলে ধরতে। আর এই উপলক্ষ্যে ৩০০টি হেলমেটও প্রদান করা হয়। পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখতে, সাথে নির্মল বাংলার লক্ষ্যে চারাগাছ ও আবর্জনার বক্স প্রদান করা হয় এদিনের অনুষ্ঠান থেকে। অনুষ্ঠানের অন্যতম অতিথি পশ্চিমবঙ্গ দূষণ নিয়ন্ত্রন পর্ষদের দুর্গাপুর আঞ্চলিক দফতরের আধিকারিক অঞ্জন ফৌজদার পরিবেশ দূষণ রোধের লক্ষ্যে প্রতিমা শিল্পীদের হাতে ভেষজ রঙ তুলে দেন। তিনি জানান,রাসায়নিক রঙের পরিবর্তে শিল্পীরা যেন এই ভেষজ রঙ ব্যবহার করেন। সামনেই শারদীয়া উৎসবের কথা মাথায় রেখে এদিন এলাকার গরীব মানুষদের মধ্যে নতুন পোষাক বিতরন করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের কমিশনার লক্ষ্মী নারায়ণ মিনা, মেয়র দিলীপ অগস্তি, ডিসি(পূর্ব) অভিষেক মোদি,এসিপি ট্রাফিক পুষ্পা, কোকওভেন থানার আধিকারিক সন্দীপ দাস,ওসি ট্রাফিক হরিশঙ্কর যাদব,বিধায়ক বিশ্বনাথ পাড়িয়াল,জেলা তৃণমূলের কার্যকরী সভাপতি উত্তম মুখার্জী,৪ নং বরো কমিটির চেয়ারম্যান চন্দ্রশেখর ব্যানার্জী,  প্রমূখ।

এদিনের অনুষ্ঠান থেকে পুলিশ কমিশনার লক্ষী নারায়ন মিনা বলেন, “শুধু দূর্গা পুজো করলেই হবে না। মায়েদের তথা মহিলাদের যথাযোগ্য সম্মান দিতে হবে। তবেই দূর্গাপুজো করার সার্থকতা মিলবে।”




Spread The Word